রিজার্ভ চুরির হোতারা কখনো শনাক্ত না-ও হতে পারেন

রয়টার্সের প্রতিবেদন

81
bdtruenews24.com

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভের অর্থ চুরির হোতাদের শনাক্ত করতে কয়েকটি দেশ মিলে তদন্তে নামলেও শেষ পর্যন্ত এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের শনাক্ত করা যাবে কি না, এ নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করা হয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রের গোয়েন্দা সংস্থার শীর্ষ পর্যায়ের এক সাবেক কর্মকর্তা এ সন্দেহ প্রকাশ করেছেন।

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে শন কেনাক নামের ওই সাইবার নিরাপত্তা বিশেষজ্ঞ বলেন, বাংলাদেশ, যুক্তরাষ্ট্র ও ফিলিপাইনের সরকারি তদন্তের দৃঢ় কোনো অবস্থান এখনো দেখা যাচ্ছে না। সিঙ্গাপুরে সাইবার নিরাপত্তাবিষয়ক এক সংলাপের ফাঁকে তিনি এ সংশয় প্রকাশ করেন। গতকাল সোমবার রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে সংশয়ের বিষয়টি তুলে ধরা হয়।

যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় গোয়েন্দা সংস্থার পরিচালকের কার্যালয়ের সাইবার নিরাপত্তা বিভাগের জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা হিসেবে পাঁচ বছর দায়িত্ব পালন শেষে গত মে মাসে অবসরে যান কেনাক।

গত ফেব্রুয়ারিতে নিউইয়র্কের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংকে রক্ষিত বাংলাদেশ ব্যাংকের ১০ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলার চুরি হয়। যার মধ্যে ৮ কোটি ১০ লাখ ডলার চলে যায় ফিলিপাইনে। আর শ্রীলঙ্কায় যায় দুই কোটি ডলার। শ্রীলঙ্কা থেকে দুই কোটি ডলার উদ্ধার করা গেলেও এখন পর্যন্ত ফিলিপাইনে যাওয়া অর্থের সিংহভাগই উদ্ধার হয়নি।

কেনাককে উদ্ধৃত করে রয়টার্স বলছে, ঘটনার সঙ্গে জড়িত ব্যক্তিদের খুঁজে বের করতে তদন্তকারীরা কখনো সফল না-ও হতে পারে। কারণ, অত্যাধুনিক কোনো অপরাধী গোষ্ঠী অথবা কোনো ‘দুর্বৃত্ত রাষ্ট্র’ এই রিজার্ভ চুরিতে জড়িত থাকতে পারে।

শেয়ার করুন :
Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন:

Loading Facebook Comments ...