যুক্তরাষ্ট্রে নৈশক্লাবে হামলার ঘটনায় আইএস’র দায় স্বীকার

হামলার ঘটনায় আইএসের সরাসরি সম্পৃক্ততা নেই: যুক্তরাষ্ট্র

103
bdtruenews24.com

যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় সমকামীদের একটি নৈশক্লাবে বন্দুকধারীর হামলার দায় স্বীকার করছে ইসলামিক স্টেট গোষ্ঠী (আইএস)। যুক্তরাষ্ট্রের স্থানীয় সময় শনিবার মধ্যরাতের ওই হামলায় নিহত হয় ৫০ জন। প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা একে সন্ত্রাস ও বিদ্বেষের কাজ বলে আখ্যা দিয়েছেন।

এদিকে, লস এঞ্জেলেসেও সমকামীদের সমাবেশে হামলার এক পরিকল্পনাকারীকে গ্রেপ্তারের কথা জানিয়েছে পুলিশ। যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডায় সমকামীদের নাইট ক্লাবে হামলার সময় বন্দুকধারী পুলিশকে ফোন করে আইএস’র প্রতি আনুগত্যের কথা বলেছেন বলে জানিয়েছে গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর তথ্য অনুযায়ী ২৯ বছর বয়সী বন্দুকধারী তরুণের নাম ওমর মতিন। তার জন্ম যুক্তরাষ্ট্রে হলেও তার বাবা-মা আফগান। গত শনিবার মধ্যরাতে ফ্লোরিডার অরল্যান্ডো শহরের ‘পালস’ নামের নাইটক্লাবটিতে ঢুকে গুলি চালায় মতিন। তাতে ৫০ জন নিহত হয় সেখানে। আহতের সংখ্যা তারচেয়ে বেশি।

হামলার পর হোয়াইট হাউজে একটি বিবৃতি দেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা প্রায় তিন ঘণ্টা পর সেখানে ঢুকে তাকে হত্যা করে পুলিশ।একে সন্ত্রাস ও বিদ্বেষের কাজ বলে আখ্যা দিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। “বন্দুকধারীর কাছে একটি হ্যান্ডগান এবং একটি অ্যাসল্ট রাইফেল ছিল। এতেই প্রমাণিত হয় কত সহজেই বন্দুকের ব্যবহার করে এখানে স্কুল বা আবাসিক এলাকা বা নাইটক্লাবে হামলা করা যায়।”

এ ঘটনার নিন্দা জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হিলারি ক্লিন্টন এবং ডোনাল্ড ট্রাম্প। ডোনাল্ড ট্রাম্প মুসলিম মৌলবাদীদের দায়ী না করায় প্রেসিডেন্ট ওবামার পদত্যাগও দাবি করেছেন। এদিকে, গোয়েন্দা সংস্থা এফবিআই’র উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা রন হপার জানিয়েছেন, হামলাকারী ওমর মতিন সম্পর্কে ২০১৩ ও ১৪ সালেও তদন্ত করা হয়েছিল। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ইতিহাসে বন্দুকধারীর হামলায় এত বেশি হতাহতের ঘটনা এই প্রথম। সূত্র: বিবিসি বাংলা।

হামলার ঘটনায় আইএসের সরাসরি সম্পৃক্ততা নেই: যুক্তরাষ্ট্র

0937143যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডা অরল্যান্ডোর নাইট ক্লাবে রবিবার বন্দুকধারীর হামলার দায় স্বীকার করেছে জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেটস (আইএস)। তবে এ ঘটনায় হামলাকারীর সঙ্গে আইএসের সরাসরি কোনো সম্পৃক্ততা নেই বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

জঙ্গি সংগঠনটির নিউজ এজেন্সি আমাক জানিয়েছে, আইএস এ হামলার দায় স্বীকার করেছে। আমাকের প্রতিবেদনের বরাত দিয়ে আন্তর্জাতিক সংবাদ মাধ্যমগুলা জানাচ্ছে, বন্দুকধারীর টার্গেট ছিল সমকামীদের ওই নাইট ক্লাবের কমপক্ষে ১০০ জনকে হত্যা করা কিংবা আহত করা। ওমর ওসমান নামে ওই বন্দুকধারী পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার আগে কমপক্ষে ৫০জনকে অতর্কিত গুলি করে হত্যা ও ৫৩ জনকে আহত করেছে।

এফবিআই জানিয়েছে, হামলাকারী ওসমান ফ্লোরিডার নাগরিক। তবে তার সঙ্গে ইসলামী জঙ্গিদের কোনো সম্পৃক্ততা রয়েছে কি না তা তদন্ত সাপেক্ষে বলা যাবে। এখন পর্যন্ত আইএস সম্পৃক্ততার কোনো প্রামাণ পাওয়া যায়নি। এদিকে হামলা পরবর্তী এক বিবৃতিতে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা বলেছেন, এটি একটি সন্ত্রাসী কাজ এবং ঘৃণীত কর্মকাণ্ড।

শেয়ার করুন :
Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন:

Loading Facebook Comments ...