মাড়ির রোগের কারণে হতে পারে ক্যান্সার!

149

দাঁতের মাড়ির রোগে শুধু মুখের দুর্গন্ধই হয় না, এটি প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারেরও কারণ হতে পারে। সম্প্রতি আমেরিকান অ্যাসোসিয়েশন অব ক্যান্সার রিসার্চের গবেষণায় এমন তথ্যই মিলেছে। এতে উঠে এসেছে প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারের নানা কারণ। এক প্রতিবেদনে বিষয়টি জানিয়েছে ফক্স নিউজ।

গবেষকরা জানিয়েছেন, মাড়ির কিছু সমস্যায় মুখে যদি দুই ধরনের ব্যাকটেরিয়ার আধিক্য দেখা যায় তাহলে রোগীদের প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারের ঝুঁকি বেড়ে যায়। এর মধ্যে পরফিরোমোনাস জিনজিভালিস নামে ব্যাকটেরিয়াটি অত্যন্ত বিপজ্জনক।

দেখা গেছে, এ ব্যাকটেরিয়াটি যাদের পাওয়া গেছে, তাদের প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারের ঝুঁকি বেড়ে গেছে ৫৯ শতাংশ। একইভাবে অ্যাগরিগ্রাটিব্যাকটার অ্যাকটিনোমাইসেটিমকোমিট্যান্স নামে আরেকটি ব্যাকটেরিয়ার কারণে প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারের ঝুঁকি বেড়ে যায় প্রায় ৫০ শতাংশ। এ বিষয়ে গবেষণাটি করেছেন নিউ ইয়র্ক ইউনিভার্সিটির গবেষকরা।

প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারের কিছু লক্ষণ

—পেটের ওপরের অংশে ব্যথা, যা পিঠ পর্যন্ত ছড়িয়ে যায়

—জন্ডিসের লক্ষণ ত্বক হলুদ হয়ে যাওয়ার পরেও চোখ সাদা থাকা

—হঠাৎ খাবারের রুচি কমে যাওয়া ও হঠাৎ ওজন কমা

—মাত্রাতিরিক্ত ক্লান্তি

—হজমে সমস্যা

—বমি বমি ভাব

—৫০ বছর বয়সের পর টাইপ টু ডায়াবেটিসের সূত্রপাত

যেসব আচরণ বা লক্ষণ প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সারের ঝুঁকি বাড়ায়

—ধূমপান

—৮০ শতাংশ প্যানক্রিয়েটিক ক্যান্সার হয়ে থাকে ৬০ থেকে ৮০ বছর বয়সের মধ্যের ব্যক্তিদের। তাই এ বয়সে সতর্ক থাকা উচিত।

—আফ্রিকান আমেরিকানদের মাঝে এ রোগের হার বেশি

—নারীদের তুলনায় পুরুষদের এ রোগের ঝুঁকি বেশি

—ক্রনিক প্যানক্রিয়েটাইটিস থাকলে এ রোগের ঝুঁকি বেশি

—ডায়াবেটিস

—স্থূলতা বা দেহের অতিরিক্ত ওজন

—বেশি মাংস, কোলস্টেরল, ভাজা খাবার ও নাইট্রোসামাইনস খেলে এ রোগের ঝুঁকি বেশি

—পারিবারিক ইতিহাস – কিছু ব্যাকটেরিয়ার উপস্থিতি

শেয়ার করুন :
Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন:

Loading Facebook Comments ...