মাহমুদ নোমান-এর ৩টি কবিতা

258
bdtruenews24.com

মাহমুদ নোমান

জন্ম: ১৮ আগষ্ট, ১৯৯০। বসবাস: আনোয়ারা সদর, আনোয়ারা, চট্টগ্রাম।

কষ্টের লিরিক


এই নিসাড় রাতে ঘুমাচ্ছ কি
জঙ্গ জহুরীর জাজিমতলে, গোলাপি রঙের
বেডশিটে ঘর্মান্ধ নোনতো চুলে এলোপাথাড়ি
জংলা ঠোঁঠে মিছরি ফুলের পরাগ মেখে
ব্যস্ত তুমি মধুর প্রীতে!

পাশ বালিশে বিজুরি চোখে, প্রিয় জুড়–লে
অন্ধকারে আমায় শুধু ভাবতে দিলে
ঝিঁ ঝিঁ পোকা দূর্বাঘাসের খড়কুঠোয়
আবছা হয়ে দেখছি তুমি নগ্নদেহী-
অশরীরী উলু দিলে।

তবু নিমঠাণ্ডা জহড়তিতে
বুকবিদীর্ণ আরশীজুড়ে
জংমুরলীর কঞ্চি ছুঁয়ে জল বিসর্জন
অন্তঃপুরের পিলসুজে।

একটু ঘুমাতে আর পারছি না
ঘুমের ঔষধ যদি দিতে।

দ্রোহ


কষ্টের বালুচরে শরণার্থীর মসজিদ
নীল রুমাল পুড়ছি কাঁটাতারের পাঁজরে
ভাঙা ঘরে চেরাগ জ্বালাতেও বলিনি কখনো।

বৈরী বাতাসে তলিয়ে গেছে বসতভিটে, নর্তকীর ঘুঙুর
সমুদ্রের ত্রিসঙ্গমে। অশান্ত স্রোতে কুমিরের গ্রীবায়
আটকে গেছে প্রেয়সীর অশ্রাব্য গালি-গালাজ।

মেঘে ডুবেছে তারা, শহরের লাইটপোষ্ট-ঝাড়বাতি।
মদের গেলাস ভাঙছে নিদয়ার চুমুকে-
কবিতাকে আজ এক লহমায় পোয়াতি করে যাব।

স্বীকৃতি


গোষ্ঠী থেকে নয়, মায়ের শ্রদ্ধাবনত:
দূরদর্শী সংযোগে, কালের বুকসেলফে
ইউসুফ-জুলেখা, রাধা-কৃষ্ণ
আদিম প্রেমিক-প্রেমিকা।

আর বারবার খুনকিয়া মেজাজে
ছুরিকাঘাত করে পুরোদমে
এপিঠ-ওপিঠের ঝাড়খণ্ডে- শান্তির দূত!
সে বিদেশিনী নয়, আমার আশ্রমের বাসিন্দা।

কবির কবিতা, চিত্রকরের ছবি
দেয়ালিকার পোষ্টার কিংবা
তাজমহল, শিরি-ফরহাদ
সবকিছুই প্রেমের একান্ত উৎসর্গীকৃত;

সে শোলকাটার বাসিন্দা নয়
নিত্যমৈত্তিকে পশ্চিমা পুকুরে
স্নান করে, ঘুমিয়ে থাকে পাটি বিছিয়ে
এক-একটি ফুল সংগৃহীত হয় ঘরকোণে

ফুলের পাঁপড়ি ছুড়ো না দোহাই
সে তপ্তমোমের মূর্তিও নয়
এক উনুনে জ্বালিয়ে দেবে
সে আমার প্রেম
যার প্রেমবোধ নেই, সে মনুষ্য হয়ে জন্ময়নি।

Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন: