বিশ্ব পর্যটন খাতের আয় ৭ লাখ ২০ হাজার কোটি ডলার

138
bdtruenews24.com

২০১৫ সালে বিশ্ব পর্যটন খাতের আয় ৭ লাখ ২০ হাজার কোটি ডলার ছাড়িয়েছে; যা বিশ্ব জিডিপির ৯ দশমিক ৮ শতাংশ। তবে বাংলাদেশের জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান মাত্র ২ দশমিক ৪ শতাংশ। ওয়ার্ল্ড ট্রাভেল অ্যান্ড ট্যুরিজম কাউন্সিলের সমীক্ষা থেকে এই তথ্য জানা গেছে।

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন এমপি বলেছেন, পর্যটন নিছক বিনোদন নয়; এটি এখন বিশ্বব্যাপী অন্যতম শিল্পের মর্যাদা পেয়েছে। এই খাতে বাংলাদেশ অনেক পিছিয়ে রয়েছে। বিশ্ব জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান ৯ দশমিক ৮ শতাংশ হলেও বাংলাদেশের জিডিপিতে এই খাতের অবদান মাত্র ২ দশমিক ৪ শতাংশ।

তিনি বলেন, ২০১৮ সালের মধ্যে দেশের জিডিপিতে পর্যটন খাতের অবদান ৪ শতাংশে উন্নীত করার লক্ষ্যে কাজ করছে সরকার। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৬ সালকে পর্যটন বর্ষ ঘোষণা করা হয়েছে। ২০১৬-১৭ অর্থবছরে ঘোষিত বাজেটে পর্যটন মন্ত্রণালয়ের জন্য বরাদ্দ বাড়ানো হয়েছে। গত অর্থবছরের তুলনায় ১৭২ কোটি টাকা বেশি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে এই খাতে।

সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে মন্ত্রী বলেন, পর্যটন শিল্পকে উৎসাহিত করতে বছরের শুরুতে পর্যটন নগরী কক্সবাজারে ‘মেগা বিচ কার্নিভাল’ উদযাপন করা হয়েছে। সম্প্রতি সাবরাং এক্সক্লুসিভ ট্যুরিস্ট জোনের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেছেন প্রধানমন্ত্রী। কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভ স্থাপন ও দোহাজারী থেকে কক্সবাজার হয়ে গুনধুম পর্যন্ত রেল লাইন স্থাপনের কাজ শুরু হচ্ছে।

তিনি বলেন, লেবুখালি ব্রিজের নির্মাণ কাজ শেষ হলে পটুয়াখালী থেকে কুয়াকাটায় যেতে কোনো ফেরি থাকবে না। ফলে পর্যটকরা স্বাচ্ছন্দ্যে ভ্রমণ করতে পারবেন। সমুদ্রবন্দর মংলায় একটি থ্রি স্টার হোটেল নির্মাণ করা হচ্ছে। পাশাপাশি বৃহত্তর সিলেটের প্রাকৃতিক সৌন্দর্যকে পর্যটন সম্ভাবনায় রূপ দিতে একটি কর্মপরিকল্পা প্রণয়ন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন :
Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন:

Loading Facebook Comments ...