বাংলাদেশের ভারত সফর নিয়ে শঙ্কা

77
bdtruenews24.com

আগামী আগস্টে প্রথমবারের মতো বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের ভারত সফরে যাওয়ার কথা ছিল। এ নিয়ে চলতি বছরের শুরুতে আগ্রহ দেখালেও এখনও তা চূড়ান্ত করেনি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (বিসিসিআই)। সামনে জিম্বাবুয়েসহ বিভিন্ন দেশের সঙ্গে সিরিজের চূড়ান্ত সূচি ঘোষণা করলেও বাংলাদেশের বিষয়টি ঝুলিয়ে রেখেছে সেদেশের বোর্ড। ফলে মুশফিক-তামিমদের ভারত সফর নিয়ে শঙ্কা দেখা দিয়েছে।

২০১৪ সালের জুনে বাংলাদেশ সফরে দুই টেস্ট খেলার কথা ছিল ভারতের। সেখান থেকে একটি বাদ দিয়ে  এবার শুধু এক টেস্ট আয়োজনের কথা ছিল। চলতি বছরের আগস্টে বাংলাদেশ দলের সঙ্গে সেই টেস্ট খেলতে চেয়েছিল ভারত।

জুনে জিম্বাবুয়ে সফরে ১টি টেস্ট ও ৩টি ওয়ানডে, জুলাইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফরে ৪ টেস্টের সফরসূচি ইতোমধ্যে ঘোষণা করেছে বিসিসিআই। এদিকে আগামী অক্টোবরে নিজেদের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৩ টেস্ট ও ৫ ওয়ানডে এবং নভেম্বরে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে ৫ টেস্টের সিরিজেরে সূচিও চূড়ান্ত করেছে বোর্ডটি। তবে আগামী আগস্টে বাংলাদেশ সফরের বিষয়টি এখনও চূড়ান্ত করেনি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

বাংলাদেশের ভারত সফর নিয়ে যে শঙ্কা দেখা দিয়েছে তা মেনে নিয়ে বিসিবির প্রধান নির্বাহী নিজামুদ্দিন চৌধুরী সুজন বলেন, চলতি বছরের বাকি সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ভারত ব্যস্ত হয়ে পড়ছে। বাংলাদেশের জন্য নির্দিষ্ট সময় বের করতে পারা কঠিন বলে মনে করছে বিসিসিআই। আমাদের জন্য কিভাবে সময় বের করা যায়, তা নিয়ে কাজ করছে বলেও জানিয়েছে বিসিসিআই। সফরের জন্য মাস নয়, নির্দিষ্ট করে দিন উল্লেখ করতে ভারতীয় বোর্ডের কাছে দাবি জানিয়েছি আমরা। কিন্তু এখনও পর্যন্ত এ ব্যাপারে নিশ্চিত করে কোনো কিছু জানায়নি বিসিসিআই।

এখনও আইসিসির এফটিপিতে আগস্টের শেষ সপ্তাহ এবং সেপ্টেম্বরের প্রথম সপ্তাহ ফাঁকা। আগামী ডিসেম্বরের শেষ ও জানুয়ারির প্রথম সপ্তাহও ফাঁকা। এদিকে, আগামী ডিসেম্বর-জানুয়ারিতে ২ টেস্ট, ৩ ওয়ানডে এবং ২টি-২০ খেলতে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের নিউজিল্যান্ড সফরসূচি প্রকাশ করেছে কিউই ক্রিকেট বোর্ড। ফলে আগামী আগস্ট-সেপ্টেম্বর ছাড়া আপাতত ভারত সফরের উপায় খুঁজে পাচ্ছে না বিসিবি। আইসিসির এফটিপি অনুযায়ী, ২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারির প্রথম ২ সপ্তাহ অবশ্য স্লট ফাঁকা আছে ভারতের। ২০১৮ সাল পর্যন্ত এফটিপির বাইরে আর কোনো স্লট নেই তাদের।

তবে এখনই নিরাশ হওয়ার পক্ষপাতী নয় বিসিবি। এ বিষয় সুজন বলেন, ৭-৮ দিনের একটা স্লট পেলে তাতেই একটা টেস্ট খেলে দেশে ফিরে আসা সম্ভব। এ বছর না হোক এই ক্রিকেট মৌসুমে তা বের করতে পারবে বিসিসিআই, এমনটাই আশা করছি আমরা

শেয়ার করুন :
Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন:

Loading Facebook Comments ...