‘বন্দুকযুদ্ধে’ এএসআই হত্যার আসামি নিহত

100
bdtruenews24.com

পাবনার ঈশ্বরদী উপজেলার পাকশী হার্ডিঞ্জ ব্রিজের নিচে পদ্মার চরে পুলিশের সঙ্গে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ রুবেল হোসেন (৩০) নামের এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন।

পুলিশ বলছে, তিনি পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) সুজাউল ইসলাম হত্যা মামলার প্রধান আসামি।মঙ্গলবার দিবাগত রাত সাড়ে ৩টার দিকে এ ঘটনা ঘটে। নিহত রুবেল হোসেনের বাড়ি পাকশীর দিয়ারবাঘইল এলাকায়।

পাকশী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বিমান কুমার দাশের বলেন, গোপন খবরের ভিত্তিতে পুলিশ রুবেল হোসেনকে গ্রেফতারে পাকশী এলাকায় পদ্মার চরে অভিযান চালায়। সেখান থেকে তাকে গ্রেফতার করে।

এএসআই সুজাউল হত্যাকাণ্ডে রুবেলের আরেক সহযোগী ইব্রাহিম হোসেনকে ধরতে পুলিশ আবার অভিযান চালায়। অভিযানে পুলিশের সঙ্গে রুবেলও ছিলেন। রুবেল ও ইব্রাহিমের সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছোড়ে। পুলিশও পাল্টা গুলি ছোড়ে। এ সময় রুবেল গুলিবিদ্ধ হন। ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

ওসি বিমান কুমার দাশ বলেন, পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে বিদেশি রিভলবার ও দুটি গুলি উদ্ধার করেছে। ‘বন্দুকযুদ্ধে’ পাকশী থানার উপপরিদর্শক (এসআই) তৌফিক হাসানসহ তিন কনস্টেবল আহত হয়েছেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। তারা ঈশ্বরদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।

গত বছরের ৪ অক্টোবর সন্ধ্যায় বাড়ি থেকে বের হন ঈশ্বরদীর পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির এএসআই সুজাউল ইসলাম। এর পর থেকে তাকে খুঁজে পাওয়া যায়নি। পরদিন ৫ অক্টোবর সকালে হার্ডিঞ্জ ব্রিজ রেললাইনের ধারে (ইপিজেড সড়ক) তার হাত-পা-মুখ বাঁধা লাশ পাওয়া যায়।

এ ঘটনায় তৎকালীন পাকশী পুলিশ ফাঁড়ির এসআই রেজাউল করিম অজ্ঞাতনামা আসামিদের বিরুদ্ধে মামলা করেন। প্রথমে দুজনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের তথ্যের ভিত্তিতে আরো ছয়জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা পাবনা থানাহাজতে রয়েছেন।

শেয়ার করুন :
Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন:

Loading Facebook Comments ...