নড়াইলে শিয়া সম্প্রদায়ের বাড়ি ভাঙচুর, লুট

46
bdtruenews24.com

নড়াইলের উজিরপুরে শিয়া সম্প্রদায়ের তিনটি বাড়ি ভাঙচুর ও লুটপাট করেছে স্থানীয় একটি প্রভাবশালী মহল। আজ শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে এ ঘটনা ঘটেছে। পুনরায় হামলার আতঙ্কে ওই পরিবারগুলোর সদস্যরা তাদের বসতবাড়ি ছেড়ে পালিয়ে বেড়াচ্ছেন। নড়াইল সদর থানার পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলেও এ ব্যাপারে কোনো মামলা হয়নি।

ভাঙচুরের শিকার পরিবার তিনটি হলো মঈনউদ্দীন শেখ, সাব্বির হোসেন শেখ এবং শাজাহান শেখ। ভুক্তভোগী পরিবারগুলোর কাছ থেকে জানা গেছে, নড়াইল পৌর এলাকার উজিরপুর-কাশিয়াড়া গ্রামে ১৯৬৪ সাল থেকে বসবাসকারী মঈনউদ্দীন শেখের পরিবারসহ আরো পাঁচটি পরিবার একত্রে বসবাস করে আসছিল।

সম্প্রতি মঈনউদ্দীন শেখের কাশিয়াড়া দক্ষিণপাড়ার বাড়ির জমি দখল করতে মরিয়া হয়ে ওঠে স্থানীয় সুন্নি সম্প্রদায়ের রবজেল ও সাফায়েত মোল্লা। শিয়া সম্প্রদায়ের মঈনউদ্দীন শেখের পরিবারের প্রায় দেড় একর সম্পত্তি দখল করে তাদের উচ্ছেদের জন্য রাস্তাঘাটে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। পরিবারের সদস্যদের বাড়ি থেকে উচ্ছেদের জন্য প্রায় মাসখানেক আগে বাড়িতে আগুন দেয়। এ ঘটনায় মামলা হলে আসামি রবজেল ও সাফায়েত জামিনে মুক্ত হয়ে পুনরায় আবার হুমকি দিতে থাকে। ভয়ে বাড়িঘর ছেড়ে দিয়ে পরিবারটি স্থানীয় অন্য শিয়া সম্প্রদায়ের লোকেদের বাড়িতে আশ্রয় নেয়।

গত ১ জুন মঈনউদ্দিন শেখের স্ত্রী ও মা বাড়িতে আসলে পাশের আসামিরা তাদের গালিগালাজ করে এবং একপর্যায়ে মারধর করে। এতে মঈনউদ্দীন শেখের স্ত্রী শাহানারা বেগম ও বৃদ্ধ মা আসিরন বেগমকে মারধর করে। এ ঘটনায় মামলা করায় আসামি আরজানসহ আরো কয়েকজন ওই পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকি দিয়ে আসছিল। আজ শুক্রবার সকালে অতর্কিতে হামলা চালিয়ে বাড়ির আসবাপত্র, টিভি, ফ্রিজ ভেঙে ফেলে এবং বাড়ি ও জায়গার দলিলের কাগজপত্র লুট করে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে বাড়িঘর ভাঙচুর ও লুটপাটের সঙ্গে জড়িত আরজান মোল্লা, রবজেল ও সাফায়েত মোল্লার কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

স্থানীয় ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি ওবায়দুল মোল্লা জানান, শহরের উজিরপুর এলাকায় ১৯৬৪ সাল থেকে প্রায় ৬৫ পরিবার শিয়া সম্প্রদায়ের কয়েকটি পরিবার বসবাস করে আসছে। উজিরপুর বাজারে তাদের রাইস মিল, লেদের ব্যবসাসহ নানা ধরনের কারবার রয়েছে। তাদের টাকা পয়সা ও উন্নতি দেখে স্থানীয় কিছু লোকজন তাদের সম্পত্তি দখলের জন্য মেতে উঠেছে।

নড়াইল সদর থানার ওসি সুবাস বিশ্বাস ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “জমিজমাসংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে বাড়িঘর ভাঙচুরের খবর পাওয়া গেছে। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। শিয়া পরিবারের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হচ্ছে। আসামি ধরার প্রচেষ্টা অব্যাহত রয়েছে।”

Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন: