দুই মাথার এক শরীর!

475

এক ছেলে এবং এক মেয়ের পর তৃতীয়বার সন্তানসম্ভবা হয়ে খুবই উত্তেজিত ছিলেন বছর ২৪-এর শিবরাজ দেবী। একইরকম ভাবে তৃতীয়বার বাবা হওয়ার আশায় প্রবল আনন্দে মেতেছিলেন ৩০ বছরের ছোট্টু সিং।

বুধবার বিকেলে যমজ সন্তানের জন্ম দিলেন শিবরাজ। আর তারপরেই দেখা দিল যাবতীয় সমস্যা। মুহূর্তের মধ্যে উধাও হয়ে গেল যাবতীয় আনন্দ। শিবরাজ দেবীর গর্ভ থেকে ভূমিষ্ঠ যমজ দুই সন্তানের দেহ একটি। যমজ দু’জনের একজন ছেলে এবং একজন মেয়ে। তাদের দু’জোড়া হাত থাকলেও পা রয়েছে একজোড়া। ওই দু’জনের শরীরের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু অঙ্গও রয়েছে একটি করে।

বুধবার বিহারের বক্সার জেলায় এক বেসরকারি হাসপাতালে ওই যমজ সন্তানের জন্ম দেয় শিবরাজ দেবী। পরিস্থিতি প্রতিকূল হওয়ায় তাদের চিকিৎসার জন্য সদর হাসপাতালে পাঠানো হয়। সদর হাসপাতালের চিকিৎসক ডাঃ রাজ কুমার গুপ্তা বলেছেন, “তলপেটের নীচ থেকে তাদের অঙ্গ সব জোড়া রয়েছে। একজনের যৌনাঙ্গ দেখা যাচ্ছে। যা দেখে বোঝা যাচ্ছে সে মেয়ে। অন্য আরেকজনের যৌনাঙ্গ এখনো দেখা যায়নি। তবে মনে হচ্ছে অপরটি ছেলে। এই ধরণের ক্ষেত্রে সাধারণত উভয়ের লিঙ্গ একই হয়ে থাকে।”

সদ্য জন্মানো এক শরীরের দুই সন্তানের শারীরিক অবস্থা একটু স্থিতিশীল হলে তাদের তিন ঘণ্টা দূরত্বের একটি বড় হাসপাতালে পাঠানো হয়। কিন্তু, হাত তুলে দেয় সেই বড় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও।

উপযুক্ত চিকিৎসার জন্য দিল্লিতে নিয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়। নিম্নবিত্ত পরিবারে জন্মানো ওই দুই শিশুর চিকিৎসার খরচ চালানোর মতো অবস্থা নেই কারখানার শ্রমিক ছোট্টু সিংয়ের। সেই কারণে সন্তানদের বাড়ি নিয়ে যেতে চাইছেন ছোট্টু-শিবরাজ। ছোট্টু সিং জানালেন, গর্ভবতী অবস্থায় সবধরনের পরীক্ষা এবং চিকিৎসকের যাবতীয় পরামর্শ মেনে চলেছিল শিবরাজ। একবারের জন্যেও বোঝা যায়নি যে শিবরাজের গর্ভে বড় হচ্ছে যমজ সন্তান।–সংবাদমাধ্যম

শেয়ার করুন :
Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন:

Loading Facebook Comments ...