চলে গেলেন স্টিভেন কেশি

90

ন্যাড়া মাথা। মুখে স্মিত হাসি। এই ‘ট্রেডমার্ক’ চেহারায় স্টিভেন কেশি ঢাকায় এসেছিলেন ২০১১ সালে। বঙ্গবন্ধু স্টেডিয়ামে লিওনেল মেসি-অ্যাঙ্গেল ডি মারিয়াদের বিপক্ষে প্রদর্শনী ফুটবলে প্রতিপক্ষ ছিল নাইজেরিয়া। সেই দলের কোচ হয়ে আসা কেশি আর নেই। পরশু ৫৪ বছর বয়সেই চলে গেলেন না ফেরার দেশে। ধারণা করা হচ্ছে, হৃদ্রোগে আক্রান্ত হয়েই মারা গেছেন তিনি। ক্যানসারের সঙ্গে তিন বছর ‘যুদ্ধ’ করে গত ডিসেম্বরে মারা যান তাঁর স্ত্রী কেট।

ফুটবলার এবং খেলোয়াড় হিসেবে নাইজেরিয়ায় নিজেকে নতুন উচ্চতায় তুলে নিয়েছিলেন কেশি। ২০১৩ সালে তাঁর তত্ত্বাবধানেই আফ্রিকা কাপ অব নেশনস জেতে নাইজেরিয়া। এর ঠিক ২০ বছর আগে খেলোয়াড় হিসেবেও জিতেছিলেন ফুটবলে আফ্রিকান শ্রেষ্ঠত্বের এই টুর্নামেন্ট। যে কৃতিত্ব আছে মাত্র আর একজনেরই—মিসরের মাহমুদ আল গোহারির। কেশির অধীনেই ২০০৬ বিশ্বকাপের চূড়ান্ত পর্বে জায়গা করে নিয়ে টোগো চমকে দিয়েছিল গোটা আফ্রিকাকে। এএফপি।

ফিনিদি জর্জ, রাশিদি ইয়েকিনি, জে-জে ওকোচা, স্যামসন সিয়াসিয়া, ডানিয়েল আমোকোচি, সানডে ওলিসেদেরকেই নাইজেরিয়ার ফুটবলে সোনালি প্রজন্ম বলা হয়। এই প্রজন্মের অন্যতম সেরা ফুটবলার ছিলেন কেশি।

Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন: