গাজীপুরে মুক্তিযোদ্ধা সংসদের মানববন্ধন

77
bdtruenews24.com

মন্জুরুল হক গাজীপুর প্রতিনিধি: ১৪ দলের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে গাজীপুরের কাপাসিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা সংসদের উদ্যোগে জামাত বিএনপি’র গুপ্ত হত্যা সন্ত্রাস নৈরাজ্য ও চক্রান্তের প্রতিবাদে ১৯ জুন রবিবার দুপুরে কাপাসিয়া মুক্তিযোদ্ধা কার্যালয়ের সামনের মানব বন্ধন করেছে।

মানববন্ধনে উপস্থিত ছিলেন সাবেক এম পি ও উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মুহম্মদ শহীদুল্লাহ, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বজলুর রশিদ মোল্লা, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক আ. ছামাদ, তরগাঁও ইউপি চেয়ারম্যান আয়বুর রহমান সিকদার, বীরমুক্তিযোদ্ধা গোলাম মোস্তাফা সিকদার, বীরমুক্তিযোদ্ধা আবদুল বাতেন উপজেলা আওয়ামী লীগ শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক প্রধান শিক্ষক শহীদুল্লাহ আজাদ, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মাহবুব উদ্দিন সেলিম, গাজীপুর সাংবাদিক ইউনিয়ন কাপাসিয়া ইউনিট আহবায়ক নূরুল আমীণ সিকদার প্রমুখ।

গাজীপুরে ছাত্রী হত্যার দায়ে এক যুবকের ফাঁসির আদেশ

গাজীপুরে প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় এক স্কুল ছাত্রীকে হত্যার দায়ে অপর এক বিশ^বিদ্যালয়ের ছাত্রকে ফাঁসিতে মৃত্যুদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। একই সঙ্গে রায়ে দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিদ্বয়ের প্রত্যেককে ১০ হাজার টাকা করে জরিমানা করা হয়। রোববার দুপুরে গাজীপুরের জেলা ও দায়রা জজ এ.কে.এম এনামুল হক এ রায় প্রদান করেন।

দন্ডপ্রাপ্তের নাম বিক্রম চন্দ্র সরকার ওরফে বিজয় সরকার (২৫)। সে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার ছোট কাঞ্চনপুর এলাকার রামপদ মনি দাসের ছেলে এবং সাভারের গণবিশ্ববিদ্যালয়ের বিবিএ ক্লাসের ছাত্র।

গাজীপুর আদালতের পিপি অ্যাডভেকেট হারিছ উদ্দিন আহমেদ জানান, মানিকগঞ্জের সাটুরিয়া থানাধীন রামরাবন এলাকার সাগর চন্দ্র মনি দাসের মেয়ে কবিতা মনি দাস (১৪)। সে কালিয়াকৈরের বোর্ডঘর উত্তর গজারিয়া এলাকার জনতা বিজয় স্বরণী উচ্চ বিদ্যালয়ে দশম শ্রেণির ছাত্রী। কবিতার মা বাবা সাভারের এনাম মেডিকেলে চাকুরি করার কারণে কবিতা কালিয়াকৈরে কাঞ্চনপুর এলাকায় তার নানার বাড়ি থেকে ওই স্কুলে লেখাপড়া করতো। স্কুলে যাওয়া আসার পথে কবিতাকে প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে প্রায়ই বিরক্ত করতো স্থানীয় যুবক বিক্রম। কিন্তু কবিতা বরাবরই তা প্রত্যাখ্যান করে আসছিল। এ খবর বিক্রমের বাবা-মাকে জানালে বিক্রম ক্ষুব্ধ হয়।

এ ঘটনার পর গত বছরের (২০১৫ সাল) ১৩ অক্টোবর দুপুরে টেস্ট (নির্বাচনী) পরীক্ষা দেয়ার জন্য কবিতা বাসা থেকে স্কুলে যাচ্ছিল। সে স্কুল গেইটের সামনে পৌঁছলে বিক্রম চাকু দিয়ে কবিতার বুকে, পেটে ও হাতে এলোপাথাড়ি ছুরিকাঘাত করে। কবিতার চিৎকারে শিক্ষক ও সহপাঠিরা এগিয়ে এসে বিক্রমকে আটক করে। পরে আহত কাবিতাকে উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক কবিতাকে মৃত ঘোষণা করেন। এঘটনায় নিহতের বাবা বাদী হয়ে কালিয়াকৈর থানায় মামালা দায়ের করেন।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই আতিকুর রহমান রাসেল তদন্ত শেষে ওই বছরের ২৮ ডিসেম্বর অভিযুক্ত বিক্রম সরকারের বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশীট দাখিল করেন। পরে গত ২৫ মে আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগ গঠন করা হয়। আদালত ওই মামলায় শুনানী ও ১০ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে রোববার দুপুরে গাজীপুরের জেলা ও দায়রা জজ এ.কে.এম এনামুল হক রায় ঘোষণা করেন। আদালত রায়ে একমাত্র আসামি বিক্রম চন্দ্র সরকার ওরফে বিজয় সরকারকে দোষী সাব্যস্ত করে। তাকে পেনাল কোডের ৩০২ ধারায় ফাঁসিতে ঝুলিয়ে মৃত্যুদন্ড ও ১০ হাজার টাকা করে জরিমানার আদেশ দেন। রায় ঘোষণার সময় আসামি বিক্রম আদালতে উপস্থিত ছিল।

রাষ্ট্র পক্ষে মামলা পরিচালনা করেন পিপি অ্যাডভেকেট হারিছ উদ্দিন। আসামি পক্ষে ছিলেন মোঃ রফিক উদ্দিন আহমেদ।

Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন: