ক্ষমতা তো গেল, বেরুবেন কোন দিক দিয়ে!

ক্ষমতা তো গেল, বেরুবেন কোন দিক দিয়ে
আইনমন্ত্রী আনিসুল হক

আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ‘ড. কামাল হোসেনরা মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে সঙ্গে নিয়ে সরকার পতনের অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছেন। সম্প্রতি ঢাকায় মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে নিয়ে তারা বৈঠকও করেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা শিক্ষার্থীদের সব দাবি মেনে নেয়ার পরও তারা সরকার পতনের ষড়যন্ত্র করেছেন।’

শুক্রবার (১০ আগস্ট) দুপুরে ব্রাহ্মণবাড়িয়ার আখাউড়া উপজেলার মোগড়া উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে মোগড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ আয়োজিত জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘ড. কামাল হোসেনরা এসকে সিনহাকে নিয়ে জুডিশিয়ালি ক্যু’র চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু সেই চেষ্টা নস্যাৎ করা হয়েছে। নতুন করে আবার সরকার পতনের গভীর যড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে মার্কিন রাষ্ট্রদূতকে নিয়ে ঢাকার একটি বাসায় গোপন বৈঠক করেন। পরে আমার মোবাইলে এসএমএস (ক্ষুদে বার্তা) পাঠিয়ে হুমকি দেয়া হয়েছে, ‘ক্ষমতা তো গেল, বেরুবেন কোন দিক দিয়ে।’

আইনমন্ত্রী হুঁশিয়ার উচ্চারণ করে বলেন, ‘আমাদের ভয় দেখিয়ে লাভ নেই। আমরা ছোট মন নিয়ে রাজনীতি করি না। আমরা জনগণকে নিয়ে, তাদের ভালোবাসায় রাজনীতি করি, আমাদের মন বিশাল। আমাদের ভয় দেখাতে আসবেন না।’

আইনমন্ত্রী বলেন, ‘সম্প্রতি দুই সহপাঠীকে বাসচালক খুন করায় শিক্ষার্থীরা আন্দোলন করেছে। তারা সড়ক পরিবহন আইনের দাবি তুলেছে। তাদের যৌক্তিক আন্দোলনকে আমরা সমর্থন দিয়েছি এবং তাদের দাবি বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মন্ত্রিসভায় পরিবহন আইন পাস করেছি। কিন্তু বিএনপি-জামায়াত ও তাদের দোসররা ওই আন্দোলনকে উত্তাপ দিয়ে সরকার পতনের অপচেষ্টা করেছিল।’

জাতীয় নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আমাদের প্রধান নির্বাচন কমিশনার আশঙ্কা করছেন- আগামী নির্বাচনে হাঙ্গামা হতে পারে। আমি বলব- আপনার কমিশন ঠিক করে আপনি সুষ্ঠু নির্বাচন দেন।’

‘আমাদের বাঙালি ভাই-বোনেরা কোনো অনিয়ম ছাড়াই ভোট দেবে। বাঙালি ভাইয়েরা অত্যন্ত সুশৃঙ্খল, আপনি ভয় পাবেন না। বাঙালিরা কখনো কোনদিন অনিয়ম করেনি। যদি অনিয়ম করে থাকে, কিছু কুচক্রিমহল অনিয়ম করেছে’ যোগ করেন আনিসুল হক।

আখাউড়া উপজেলার মোগড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি নোয়াব মিয়ার সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আখাউড়া উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক অধ্যাপক জয়নাল আবেদীন, আখাউড়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) মো. শামছুজ্জামান, আইনমন্ত্রীর এপিএস রাসেদুল কাউছার জীবন, আবুল কাশেম ভূঁইয়া, সেলিম ভূঁইয়া, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি আব্দুল্লাহ্ ভুঁইয়া বাদল, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সৈয়দ তানজিল শাহ তচ্ছন প্রমুখ।

Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন: