ওয়ার্নের বিশ্বসেরা দলে মুস্তাফিজ

121

একটা দৃশ্য কল্পনা করুন তো। টি-টোয়েন্টি ম্যাচে আগে বোলিং পেল একটা দল। ইনিংসের প্রথম ওভারেই গতির ঝড় তুলে গেলেন মিচেল স্টার্ক। দ্বিতীয় ওভারটি করার জন্য অধিনায়কের হাতে অনেক বিকল্প। শুরুতেই স্পিনার চাইলে সুনীল নারাইন, মিডিয়াম পেসের জন্য আছেন ওয়াটসন-ব্রাভো। অনেক ভেবেচিন্তে অধিনায়ক ডেকে আনলেন থার্ডম্যানে দাঁড়ানো হালকা গড়নের বাঁহাতি পেসারটিকে। উদ্দেশ্য, কাটার-স্লোয়ারে শুরু থেকেই প্রতিপক্ষ ওপেনারদের বিভ্রান্তিতে ফেলা। সেই বোলারটি আর কেউ নন, মুস্তাফিজুর রহমান!

দৃশ্যটা কল্পিত, দলটাও তেমনই। শেন ওয়ার্নের কল্পনা। অস্ট্রেলিয়ান কিংবদন্তি স্বনির্বাচিত বিশ্বসেরা টি-টোয়েন্টি দল দিয়েছেন নিজের ফেসবুক পেজে। সেই দলেই কোহলি-ডি ভিলিয়ার্স-স্টার্কদের সঙ্গে আছেন বাংলাদেশি বাঁহাতি ‘কাটার-মাস্টার’!

অবশ্য এখানে খুব চমকেরও কি কিছু আছে? অভিষেকের পর থেকেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের সবুজ বাগানে যেন প্রজাপতির ডানা মেলে চলেছেন মুস্তাফিজ। এক বছরের কিছু বেশি সময়ে সাফল্যও কম নয়। আইসিসির ২০১৫ সালের বর্ষসেরা ওয়ানডে দলে জায়গা করে নেওয়া, আইপিএল মাতিয়ে সেরা উদীয়মান খেলোয়াড় হওয়া… মুস্তাফিজের জয়গান সর্বত্রই। ওয়ার্নের সেরাদের দলে জায়গা করে নেওয়াটাকে তাই ‘অবশ্যম্ভাবী’ই মনে হচ্ছে।

অস্ট্রেলীয় কিংবদন্তির ঘোষিত দলটা হয়েছেও দুর্দান্ত। কি ব্যাটিং, কি বোলিং… এই দলের সামনে দাঁড়াতে যেকোনো দলেরই গলা শুকিয়ে যাওয়ার কথা। দুই উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান ক্রিস গেইল ও ব্রেন্ডন ম্যাককালাম। কিন্তু এই দুজনকে ফিরিয়েও নিস্তার নেই, মিডল অর্ডারের দুই ব্যাটসম্যান যে বিরাট কোহলি ও এবি ডি ভিলিয়ার্স! এরপর তিন অলরাউন্ডার শেন ওয়াটসন, ড্যারেন ব্রাভো ও আন্দ্রে রাসেল। উইকেটকিপার জস বাটলার। আর বোলিংয়ে ত্রিফলার কথা তো বলা হলোই, মুস্তাফিজ-স্টার্কের পেস বৈচিত্র্যের সঙ্গে সুনীল নারাইনের ঘূর্ণি।

নির্বাচক হিসেবে একেবারে মন্দ নন ওয়ার্নার! সূত্র: ফেসবুক।

ওয়ার্নের চোখে বিশ্বসেরা টি-টোয়েন্টি দল
গেইল, ম্যাককালাম, কোহলি, ডি ভিলিয়ার্স, ওয়াটসন, রাসেল, ব্রাভো, বাটলার, স্টার্ক, নারাইন, মুস্তাফিজ।

Follow Facebook

আপনার মন্তব্য প্রকাশ করুন: